যেভাবে অ্যালোভেরা ব্যবহার করলে চুল মোলায়েম হবে

গ্রীষ্মের খরতাপ শুধু আমাদের ডিহাইড্রেটেডই করে না, প্রভাব ফেলে ত্বক ও চুলের উপরেও। রোদ ও ধুলাবালিতে চুলের ক্ষতি হয় অনেক বেশি। রোদের তাপে চুল রুক্ষ এবং শুষ্ক হয়ে যায়। চুল পড়ার সমস্যাও বেড়ে যায়। এই সময় চুলের চাই বাড়তি যত্ন। গরমের সময় চুল সুস্থ রাখতে ব্যবহার করতে পারেন অ্যালোভেরা। এটি চুলের ময়েশ্চার বজায় রেখে চুল নরম ও মোলায়েম করে। জেনে নিন কীভাবে ব্যবহার করবেন।

 

১ চা চামচ মধু, ২ চা চামচ নারকেল তেল ও ২ চা চামচ অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করুন। গোসলের আধ ঘণ্টা আগে এই মিশ্রণ চুলে লাগিয়ে নিন। ভেষজ শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন।
২ চা চামচ টক দইয়ের সঙ্গে মিশিয়ে দিন ১ চা চামচ অ্যালোভেরা জেল। এই মিশ্রণ সময় নিয়ে ম্যাসাজ করুন চুলে। কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে মাইল্ড শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নিন।
ডিমের কুসুমের সঙ্গে ২ চা চামচ অ্যালোভেরা ও ১ চা চামচ অলিভ অয়েল ভালো করে মিশিয়ে নিন। প্যাকটি চুলে মেখে আধা ঘণ্টা অপেক্ষা করুন। এরপর চুল ধুয়ে ফেলুন শ্যাম্পু দিয়ে।
৪ টেবিল চামচ মধুর সঙ্গে সমপরিমাণ আপেল সিডার ভিনেগার মেশান। আধা কাপ অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে মিশ্রণটি ব্লেন্ড করে নিন ভালো করে। কয়েক ফোঁটা ল্যভেন্ডার এসেনশিয়াল অয়েল মেশান। চুল ভিজিয়ে প্যাকটি ব্যবহার করুন শ্যাম্পুর মতো। নিয়মিত ব্যবহারে মাথার ত্বকের জীবাণু দূর হবে। পাশাপাশি চুল হবে উজ্জ্বল ও ঝলমলে।
অ্যালোভেরার পাতা কেটে জেল সংগ্রহ করে মাথার তালু থেকে শুরু করে চুলের নিচ পর্যন্ত লাগান। পুরোপুরি না শুকানো পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। শ্যাম্পু করবেন না। অ্যালোভেরার জেল প্রাকৃতিকভাবে পরিষ্কার করে চুল।
চার ভাগের একভাগ অ্যালোভেরা জেলের সঙ্গে ভেজিটেবল অয়েল মিক্স করুন। তারপর মিশ্রণটি ১০ মিনিট গরম করে ঠান্ডা করে নিন। শুষ্ক জায়গায় সংরক্ষণ করুন। এটি নিয়মিত ব্যবহার করলে খুশকি দূর হবে ও চুল পড়া কমবে। এছাড়া খুশকি দূর করতে লেবুর রস ও নারিকেল তেলের সঙ্গে অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে চুলের গোড়ায় লাগাতে পারেন।

Read Previous

ব্রিটেনের সর্বপ্রথম ক‌নিষ্ঠ কাউন্সিলর বাংলাদেশি ইসমাইল

Read Next

২৬ ঘণ্টা পর সুন্দরবনের আগুন নিয়ন্ত্রণে, তদন্ত কমিটি গঠন

Most Popular